হাসপাতাল তৈরির প্রস্তাব : বসুন্ধরা গ্রুপের ১০ কোটি টাকা অনুদান

মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। তাই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় সব ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বৈশি^ক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাসের প্রকোপ ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে। এ অবস্থায় মানবসেবায় এগিয়ে এসেছে দেশের শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ। করোনা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি।

গত রবিবার বিকালে প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে চেক হস্তান্তন করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। এছাড়া ৫ হাজার শয্যার হাসপাতাল তৈরির প্রস্তাব রেখেছে দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানটি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দেয়া বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের লিখিত প্রস্তাবে বলা হয়, রাজধানীর কুড়িলে বসুন্ধরার চারটি কনভেনশন সেন্টার ও একটি ট্রেড সেন্টারকে ৫ হাজার শয্যার হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী এ প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর।

অতীতের বিভিন্ন সময়ের ধারাবাহিকতায় ত্রাণ তহবিলে অনুদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী ধন্যবাদ জানান এবং তার পক্ষে মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস অনুদানের চেক গ্রহণ করেন।

একই সঙ্গে গত রবিবার বিকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪০, ৪২ ও ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের মাধ্যমে বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রত্যেক পরিবারকে ১০ কেজি মিনিকেট চাল, ২ কেজি মসুর ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ২ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি আলু, ৫০০ গ্রাম রসুন, ৫০০ গ্রাম আদা দেয়া হয়।

ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) গুলনকশা হল থেকে ত্রাণ সামগ্রী সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও তাদের প্রতিনিধিদের কাছে হস্তান্তর করেন বসুন্ধরা গ্রুপের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ইমরুল হাসান, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মাহবুবউর রহমান ও নাজমুল আলম ভূঁইয়া।